আজ ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

অবিলম্বে গ্রিক দেবীর মূর্তি অপসারণ করতে হবে: ইশা ছাত্র আন্দোলন

স্টাফ রিপোর্টার : আজ ১৭ মার্চ রোজ শুক্রবার ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ফতুল্লা থানা শাখার “থানা সম্মেলন ২০১৭” পাগলা বাজারস্থ আই.এস.সি.এ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ শিব্বির আহমাদ। ইশা ছাত্র আন্দোলন ফতুল্লা থানা শাখার সংগ্রামী সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ এর সভাপতিত্বে উক্ত সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ফতুল্লা থানা শাখার সাবেক সংগ্রামী সভাপতি হযরত মাওলানা আনোয়ার হোসেন জিহাদী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইশা ছাত্র আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক বলেন, ইসলামী শাসনছাড়া মানবতার কাঙ্ক্ষিত মুক্তি নেই। আর ইসলামী শাসন প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশের ছাত্ররাই অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে। এজন্য তিনি সাধারণ ছাত্র জনতাকে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন এ শরীক হয়ে দ্বীন বিজয়ের আন্দোলনে অংশগ্রহণ এর আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, এদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষার্থে বরাবরই ছাত্ররা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। কিন্ত আজ সুপরিকল্পিতভাবে বাম ও নাস্তিকগোষ্ঠী দেশের ছাত্রদের মাঝ থেকে ইসলাম ও স্বাধীনতার চেতনা উঠিয়ে দিয়ে নাস্তিক্যবাদী এবং ধর্মবিদ্বেষী “শিক্ষা আইন ২০১০” ও “শিক্ষানীতি ২০১৬” প্রণয়ন করেছে। এই শিক্ষানীতি ও শিক্ষাআইন অবিলম্বে প্রত্যাহার করে দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের চিন্তা চেতনা ও সংষ্কৃতিকে বিবেচনায় রেখে ইসলাম ভিত্তিক সর্বজনীন শিক্ষা আইন ও শিক্ষানীতি প্রণয়ণ করতে হবে। বক্তব্য শেষে তিনি ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ফতুল্লা থানা শাখার নতুন কমিটি ঘোষণা করেন। নবগঠিত কমিটিতে সভাপতি আব্দুল্লাহ হাসান, সহ-সভাপতি আব্দুল হান্নান ও সাধারণ সম্পাদক মু. সাইফুল ইসলামকে মনোনীত করে শপথ পাঠ করান। প্রধান বক্তা মাওলানা আনোয়ার হোসেন জিহাদি বলেন, ইশা ছাত্র আন্দোলন সাহাবায় কেরামের আদর্শবাদী এক বিপ্লবী সংগঠন। প্রচলিত রাজনীতির বাইরে গিয়ে ইশা ছাত্র আন্দোলন ছাত্র রাজনীতিতে এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেছে। সকল ছাত্র জনতাকে তিনি এই বিপ্লবী কাফেলার সাথে শরীক হয়ে আত্মগঠনে ও ইসলামী শাসন প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে শরীক হবার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিমকোর্টের সামনে যে গ্রিক দেবীর মূর্তি বসানো হয়েছে তা ইসলামী মূল্যবোধ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী। জাতীয় ঈদগাহ এর সামনে এমন মূর্তি হাজারো ঈমানদার জনতার হৃদয়ে আঘাত হেনেছে । অবিলম্বে এই মূর্তি অপসারণের জন্য তিনি সরকারের প্রতি আহবান জানান। সভাপতির বক্তব্যে মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ বলেন, ইশা ছাত্র আন্দোলন একঝাঁক মেধাবী ছাত্রদের সমম্বয়ে তৈরি রুহানিয়াত ও জিহাদের সমন্বিত এক আন্দোলন। মুক্তিকামী ছাত্রজনতার একমাত্র আশ্রয়স্থল। তিনি বলেন, ইশা ছাত্র আন্দোলনের মাধ্যমে এদেশের মানুষ আজ যে ইসলামী বিপ্লবের স্বপ্ন দেখছে তাকে বাস্তবায়নের রূপদান করার জন্য ছাত্রদের আরো সময়ানুবর্তীতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে। এস এস সি পরীক্ষায় পুনর্বার প্রশ্ন ফাঁস এর সমালোচনা করে তিনি বলেন, এভাবে প্রশ্ন ফাঁস করে শিক্ষাঙ্গনে বিশৃঙ্খলা কোনমতেই মেনে নেয়া হবে না। শিক্ষামন্ত্রীর অপসারণ দাবি করে তিনি বলেন, এদেশের আপামর ছাত্র জনতার ঈমান ও চরিত্র ধ্বংস সাধনের জন্যই আজ ইসলামি বিদ্বেষী ও নাস্তিক্যবাদী শিক্ষা সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে। তিনি অবিলম্বে এই বিতর্কিত শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইন বন্ধের আহবান জানান। এছাড়াও গ্রীক দেবীর মূর্তি অপসারণে যথাযথ পদক্ষেপ না নিলে ছাত্রদের নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলারও হুমকি দেন তিনি। সম্প্রতি হিন্দুদের হোলি উৎসবে কিছু উ
গ্র সন্ত্রাসী কর্তৃক নারীদের সাথে নোংরামির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। তিনি অবিলম্বে এমন জঘন্য কাজে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান। সম্মেলনে ইশা ছাত্র আন্দোলন ফতুল্লা থানার বিভিন্ন শাখা থেকে শত শত ছাত্র উপস্থিত হয়। এছাড়াও ফতুল্লা থানা শাখার বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, সমাজসেবক এবং ইসলামী আন্দোলন এর বিভিন্ন শাখার দায়িত্বশীলগণ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত দিন
525Shares

স্যোসাল মিডিয়াতে দেখুন আমাদের সংবাদ

Follow us on Facebook Follow us on Twitter Follow us on Pinterest 0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     একই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ