আজ ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দুবাই শাখার ঈদ পূনর্মীলনী সভা অনুষ্ঠিত

আইএবি নিউজ ডেস্ক রিপোর্টঃ প্রচলিত শাসন ব্যবস্থা পরিবর্তন করে কুরআন-সুন্নাহ ভিত্তিক শাসন কায়েম করা না গেলে মজিব আর জিয়ার আদর্শের বেড়াজালে বাংলাদেশের ভাগ্য ঘুরপাক খাবে কিন্তু দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হবে না।
দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করার জন্য ইসলামী আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ মোহাম্মাদ ফজলুল করিম রহঃ এর ইবাদতের রাজনীতির দাওয়াত বাংলাদেশের প্রতিটি ঘরে ঘরে পৌছিয়ে দিতে হবে।
ইসলামী আন্দোলন আরব আমিরাতের কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত ঈদ পূনর্মীলনী সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মাওলানা আলী হোসাইন সাহেব দাঃ বাঃ সভাপতির বক্তব্য দিতে গিয়ে উপরোক্ত কথা বলেন।
তিনি বর্তমান ও বিগত সরকারগুলোর সমালোচনা করে বলেন, শান্তি একমাত্র আল্লাহ এবং রাসুল সাঃ এর তরিকায়, মুজিব ও জিয়ার আদর্শে শান্তি নাই।
যদি থাকতো তাহলে বাংলাদেশের আজ এই অবস্থা হতো না।
তিনি তথাকথিত কিছু ইসলামী দলকে ইশারা করে প্রশ্ন করেন, আজ কেন হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে নামানোর জন্য এত ফঁন্দী ও তদবির করেন?
একদিন এই দলকেই ক্ষমতায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টাতো আর কম করেন নাই!
আপনাদের সহযোগীতা নিয়েই তো ২১ বছর পর সরকার গঠন করেছিল আওয়ামীলীগ!
তিনি সকল শ্রেণির মানুষের কাছে আবেদন করে বলেন, আসুন ইনসাফ কায়েমের জন্য আমরা সকলে যদি রাজনীতিকে ইবাদত হিসাবে গ্রহণ করি, তাহলে বাংলাদেশকে সমৃদ্ধশালী রাষ্ট্র হিসাবে দেখতে বেশি সময়ের প্রয়োজন হবে না ইনশাহ আল্লাহ্।
দুবাইয়ের দেরাস্থ মাউন্ড রয়েল হোটেলে আয়োজিত ঈদ পূনর্মিলী সভায় আরো বক্তৃতা করেন ইসলামী আন্দোলন আরব আমীরাত কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও দুবাই শাখার সভাপতি মাওলানা আনছারুল্লাহ সাহেব, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও আল-আইন শাখার সভাপতি মাওলানা আজিজুল্লাহ সাহেব, কেন্দ্রীয় কমিটির সেক্রেটারি ও আবুধাবী শাখার সভাপতি মাওলানা নেয়ামত উল্লাহ আশরাফী, শারজাহ শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির অর্থ সম্পাদক মওলানা ফয়জুল্লাহ সাহেব, কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সেক্রেটারি জনাব আলহাজ্ব জুলফিকার সাহেব, দুবাই শাখার সেক্রেটারি মুফতি কামাল বিন সৈয়দ, আজমান শাখার সেক্রেটারি মাওলানা আরিফুল ইসলাম, মাওলানা দিলদার হোসানাই, মাওলানা রফিক সাহেব, হাফেজ আবুল খায়ের সাহেব, মাওলানা নাছির উদ্দীন বিন সিদ্দীক আহমদ, মাওলানা আব্বাস আলী সহ আরো অনেকে।
বক্তরা বলেন, ইসলামী আন্দোলনের নীতির রাজনীতির সাথে জনগণের সম্পৃক্ততায় প্রমাণ করে বাংলাদেশে অচিরেই ইসলামী বিপ্লব সংগঠিত হবে আর এই বিপ্লবের নেতৃত্ব হযরত পীরসাহেব চরমোনাই অধীনেই হবে ইনশাহ আল্লাহ।
বক্তরা আরো বলেন, ৯৫ % মুসলমানের দেশে সুপ্রিমকোর্টের সামনে মূর্তি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নাটক করার কোন মানে হয়না।
তারা বলেন ইমরান সরকার, সুলতানা কামাল, হাসানুল হক ইনুরা প্রধানমন্ত্রীর বলে বলিয়ান হয়ে ইসলাম, আজানের বিরুদ্ধে কথা বলছে।
প্রধানমন্ত্রী যদি ইসলাম বিরোধীদের পক্ষে শক্তির যোগান দেওয়া বন্ধ করে বাংলাদেশে ইসলাম বিরোধী শক্তী ১ মিনিটও ঠিকতে পারবেনা ইনশাহ আল্লাহ।
তারা সরকারকে হুশিয়ার করে বলেন, ইসলাম নিয়ে তামাশা করার পরিনাম কারো জন্য ভাল হবেনা, বাংলাদেশের জনগণ চিরদিনের জন্য কাউকে ক্ষমতার চাবিকাঠি দিয়ে দেয়নি! বাংলার জনগোষ্ঠী কারো একক কর্তৃত্ব মেনে নেয়নি আর কোন দিন মানবেও না।

আপনার মতামত দিন
1.1K+Shares

স্যোসাল মিডিয়াতে দেখুন আমাদের সংবাদ

Follow us on Facebook Follow us on Twitter Follow us on Pinterest 0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     একই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ