আজ ৮ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

গরুর গোস্ত নিয়ে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র চলছে : ইসলামী আন্দোলন ঢাকা মহানগর উত্তর

আইএবি নিউজ : বাংলাদেশের জনগণের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ইতিহাস বেশ প্রাচীন। এদেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার কোন ঘটনা কখনও ঘটেনি। কিন্তু বেশ কিছুদিন যাবৎ একদল নরাধম ভারতের উগ্র শীবসেনাদের জঙ্গী কার্যক্রম এদেশে আমদানি করার হীন পায়তারা চালাচ্ছে। গরুর গোশত নিয়ে সমালোচনা করছে। গরুর গোশত নিয়ে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করছে। এটা নিয়ে হুল্লোড় সম্পূর্ণই শিবসেনার রাজনৈতিক ফাজলামি। এর মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র চলছে। এসব অপতৎপরতা এখনই প্রতিহত করতে হবে।
গতকাল ১৯ এপ্রিল বিকাল ৪টায় পুরানা পল্টনস্থ নগর কার্যালয়ে আগামী ২১ এপ্রিল’১৭ইং সুপ্রিমকোর্ট চত্বর থেকে গ্রীক দেবীর মূর্তি অপসারণের দাবীতে বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইটে আহুত জাতীয় মহাসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তরের প্রস্তুতি সভায় সভাপতির বক্তব্যে নগর উত্তরের সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ উপরোক্ত কথা বলেন।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সেক্রেটারী মুহাম্মাদ মোশাররফ হোসেন, জয়েন্ট সেক্রেটারী মাওলানা আরিফুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মাও: সিদ্দিকুর রহমান, মুফতী মাছউদুর রহমান, প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন, মুফতী ফরিদুল ইসলাম, এ্যাডভোকেট শওকত আলী হাওলাদার, ডাঃ মজিবুর রহমান প্রমুখ।
তিনি আরে বলেন, আমরা গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চরুকলা অনুষদে গরুর গোশত রান্নার অভিযোগে গত ১লা বৈশাখে মারধর ও ভাংচুর করা হয়েছে। চারুকলা অনুষদে গরুর গোশত নিষিদ্ধ করার দাবী করা হয়েছে। গরুর গোশত খাওয়া হিন্দুদের যতটা না ধর্মীয় বিধান তার চেয়ে বেশি এটা শিবসেনার রাজনৈতিক বিষয়। ভারতেও সব রাজ্যে গরুর গোশত নিষিদ্ধ না। যেসব রাজ্যে নিষিদ্ধ করা হয়েছে সেটাও ইদানিং কালে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পরে। বিজেপি ও শিবসেনার রাজনৈতিক এজেন্ডা কেন বাংলাদেশে বাস্তবায়ন করা হবে?
নেতৃবৃন্দ বলেন, হিন্দুরা যারা গরুর গোশত খেতে চান না তারা খাবেন না। এতে মুসলমানদের কোন আপত্তি নেই। আমরা কখনো প্রশ্ন তুলি নাই যে, মেডিক্যালের কয়েকটি হল ও জগন্নাথ হলে গরুর গোশত রান্না হয় না কেন? জগন্নাথ হলে গরুর গোশত রান্না না হওয়াই উচিৎ। কারণ জগন্নাথ হল বিশেষায়িত হল। এখন প্রশ্ন হলো, চরুকলা কি বিশেষায়িত হিন্দু অনুষদ? যদি সেটা না হয়, তাহলে সেখানে গরুর গোশত রান্না করা নিষিদ্ধ হবে কোন যুক্তিতে? কাউকে যেমন জোর করে গরুর গোশত খাওয়ানো যায় না, তেমনি জোর করে কোন হালাল বস্তুকে নিষিদ্ধ করা যাবে না।
বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি চায় না সরকারের ঘাড়ে চেপে বসা সুপরিচিত গুটি কয়েক ইসলাম বিদ্বেষী। তারাই বার বার সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য ধর্মীয় স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে পানি ঘোলা করে। সরকার যদি এদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে চায়, তাহলে এখনই সময় এদেশের আগাছা পরিষ্কার করে সরকারের মাঝে ঘাপটি মেরে থাকা ষড়যন্ত্রকারীদের মুখোশ উন্মোচন করে দেয়া। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায় যারা সন্ত্রাসী কার্যক্রম ঘটিয়েছে অনতিবিলম্বে আমরা তাদের বিচার দাবী করছি। অন্যথায় এটা সমাজে অস্থিরতা তৈরী করতে পারে।
মহাসমাবেশ সফল করেতে ঢাকা উত্তরে ব্যাপক প্রস্তুতি
২১ এপ্রিল মহাসমাবেশ সফল করতে ঢাকা মহানগর উত্তরের বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ড ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। গতকাল নগর উত্তরের রামপুরা, মিরপুর, ভাষানটেক, ভাটারা, বাড্ডা, আদাবর ও মোহাম্মদপুর সহ বিভিন্ন থানায় পৃথক পৃথক প্রস্তুতি সভা, পোস্টার লাগানো, দাওয়াতী সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আপনার মতামত দিন
1K+Shares

স্যোসাল মিডিয়াতে দেখুন আমাদের সংবাদ

Follow us on Facebook Follow us on Twitter Follow us on Pinterest 0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     একই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ