আজ ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৭ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সুনামগঞ্জ -৩ আসনে ইসলামী আন্দোলনের সম্ভাব্য প্রার্থী মাও.ক্বারী মুহিব্বুল হক আজাদ

এস এইচ কামরুল,সুনামগঞ্জ (জেলা) সংবাদদাতা: সুনামগঞ্জ জেলার ভিআইপি আসন হিসেবে খ্যাত সুনামগঞ্জ-৩ আসন। প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুর ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত এ আসনে ভোটার সংখ্যা প্রায় চার লাখ। আওয়ামীলীগ সরকারের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মরহুম আব্দুস সামাদ আজাদ ও এরশাদ সরকারের সাবেক মন্ত্রী, পরবর্তীতে আওয়ামীলীগ থেকে এমপি নির্বাচিত সাবেক স্পীকার মরহুম হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীর বাড়ী এখানে। আব্দুস সামাদ আজাদের মৃত্যুর পর বিগত চারদলীয় জোট সরকারের আমলে উপনির্বাচনে এমপি হন জমিয়তের প্রার্থী এড.মাও.শাহিনুর পাশা চৌধুরী। পরবর্তিতে ২০০৮ ইং সনের জাতীয় নির্বাচন ও ২০১৪ ইং সনের প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচনে আব্দুস সামাদ আজাদ তনয় আজিজুস সামাদ ডনকে পরাজিত করে এ আসনে এমপি নির্বাচিত হন সাবেক সচিব, বর্তমান অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। তবে আগামী জাতীয় নির্বাচন ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে ১৪ দলীয় জোট এবং বিশ দলীয় জোটে শুরু হয়েছে প্রার্থীতা নিয়ে গৃহ বিবাদ ও টানাপোড়েন। অপর দিকে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে পীরসাহেব চরমোনাই মনোনিত ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে এলাকায় কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন সুনামগঞ্জ জেলা ইসলামী আন্দোলনের সংগ্রামী সভাপতি বিশিষ্ট ওয়ায়েজ মাও.ক্বারী মুহিব্বুল হক আজাদ। দলের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা আহবায়ক মাও.মামুন আহমদ ও সদস্য সচিব মাও.নাজমুল ইসলাম জানান,পীর সাহেব চরমোনাইয়ের নারী নেতৃত্ব বিরোধী অবস্থান ও নীতির প্রশ্নে আপোষহীন ভুমিকার কারণে আলেম-উলামা অধ্যুষিত এ এলাকার মানুষ দলে দলে ইসলামী আন্দোলনের পতাকাতলে সমবেত হচ্ছে। দু’টো উপজেলায় ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে সংগঠনকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। তিনি আরো জানান, হাতপাখার প্রার্থী মাও.ক্বারী মুহিব্বুল হক আজাদের উদ্যোগে ইতিমধ্যে এলাকা সফর করেছেন পীরে কামেল মুফতি সৈয়দ মুহা. ফয়জুল করিম, শায়খে চরমোনাই সহ সিলেট বিভাগীয় শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। আগামী দিনগুলোতে আমাদের কার্যক্রম আরো জোড়দার ও বেগবান হবে ইনশাআল্লাহ। এদিকে হাতপাখার প্রার্থী জনাব মাও.ক্বারী মুহিব্বুল হক আজাদ বলেন, সুনামগঞ্জ-৩ আসন পীর -আউলিয়াদের পুণ্যভুমি। এখানকার মানুষ খুবই ধর্মপ্রাণ। অতীতে বড় দু’দল ও জোটের নেতারা রাষ্ট্রের গুরুত্বপুর্ণ দায়িত্বে থাকলেও এলাকার কাংখিত কোন উন্নয়ন করেননি।রাস্তাঘাটের অবস্থা অত্যন্ত করুণ। ফলে সাধারণ জনগণ আর ভুল করবেনা। তিনি আরো বলেন,পীরসাহেব চরমোনাইয়ের নির্দেশে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে ময়দানে কাজ করে যাচ্ছি। মানুষ সৎ যোগ্য ও খোদাভীরু নেতৃত্ব চায়। দুর্নীতি-দুঃশাসন, সন্ত্রাস-টেন্ডারবাজী ও জুলুম-অত্যাচার থেকে মুক্তি চায়। সামাজিক সুবিচার,সুষম উন্নয়ন, সার্বজনীন ইসলামী শিক্ষা ও ইনসাফ ভিত্তিক কল্যাণ রাষ্ট্র কায়েমের লক্ষ্যে মানুষ পরিবর্তন চায়। সৃষ্টি যাঁর,আইন তাঁর এ মৌলনীতিকে সামনে রেখে পীরসাহেব চরমোনাইয়ের নেতৃত্বে জনসাধারণের আশা-আকাংখার প্রতি লক্ষ্য রেখেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

আপনার মতামত দিন
1.3K+Shares

স্যোসাল মিডিয়াতে দেখুন আমাদের সংবাদ

Follow us on Facebook Follow us on Twitter Follow us on Pinterest 0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     একই ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ